Breaking News

'কোটি টাকার দুর্নীতি করে মুখে চোর শব্দ মানায়না', শুভেন্দুকে কটাক্ষ অজিত মাইতির

‘কোটি টাকার দুর্নীতি করে মুখে চোর শব্দ মানায়না’, শুভেন্দুকে কটাক্ষ অজিত মাইতির

‘কোটি টাকার দুর্নীতি করে মুখে চোর শব্দ মানায়না’, শুভেন্দুকে কটাক্ষ অজিত মাইতির

নিজস্ব প্রতিবেদন, সোমবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার গড়বেতা থানার ছোট আঙারিয়া গণহত্যা দিবস উদযাপন উপলক্ষে গড়বেতা থানার বোস্টম মোড়ে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এক সভার আয়োজন করা হয়। ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি, তৃণমূল নেতা বক্তার মণ্ডল, জেলা পরিষদের সভাধিপতি উত্তরাসিংহ হাজরা, বিধায়ক আশীষ চক্রবর্ত্তী, শ্রীকান্ত মাহাতো, দিনেন রায়, তৃণমূল যুব কংগ্রেসের জেলা সভাপতি প্রসেনজিৎ চক্রবর্তী, তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠনের জেলা সভাপতি নির্মল ঘোষ, তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা সেবাব্রত ঘোষ সহ আরো অনেকে।

গড়বেতার বোস্টম মোড় থেকে মিছিল করে ছোট আঙারিয়া গ্রামে গিয়ে শহীদ বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা। উল্লেখ করা যায় যে ২০০২ সালের ৪ জানুয়ারি গড়বেতা থানার ছোট আঙারিয়া গ্রামে নৃশংসভাবে তৃণমূল কংগ্রেসের পাঁচ জন কর্মীকে বক্তার মন্ডল-এর বাড়িতে আগুন লাগিয়ে খুন করেছিল সিপিএমের হার্মাদ বাহিনী। এখনও যদিও এই হত্যার খুনিরা শাস্তি পায়নি। বর্তমানে মামলা চলছে। রাজ্যে ২০১১ সালে পরিবর্তনের পর তৃণমূল কংগ্রেস ছোট আঙারিয়া গ্রামে গিয়ে প্রতিবছর শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে ছোট আঙারিয়া দিবস পালন করে। ওই গণহত্যার অন্যতম প্রত্যক্ষদর্শী বক্তার মণ্ডল প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন।

এ বছরও তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ছোট আঙারিয়া গণহত্যা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তবে প্রতিবছরের মতো এবছর ছোট আঙারিয়া গ্রামে সভা করা হয়নি। কারণ সভায় ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ শামিল হয়েছিলেন। তাই সোমবার গড়বেতার বোষ্টম মোড়ে সভার আয়োজন করা হয়েছিল। ওই সভা থেকে তৃণমূলের নেতারা বলেন,  ছোট আঙারিয়া গ্রামে যাঁরা নিহত হয়েছেন তাঁদের পরিবারের পাশে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। যতদিন তৃণমূল কংগ্রেস থাকবে ততদিন ছোট আঙারিয়া গণহত্যা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠান হবে। সেই সঙ্গে নিহত শহীদদের পরিবারের পাশে থাকবেন তাঁরা।

প্রকাশ্য সমাবেশে তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি তীব্র ভাষায় শুভেন্দু অধিকারীকে কটাক্ষ করেন। তিনি শুভেন্দু অধিকারীকে কাপুরুষ বলেন। তিনি বলেন এক কোটি শুভেন্দু অধিকারী ও দুই কোটি দিলীপ ঘোষ আসলেও ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ক্ষমতায় আসতে পারবে না বাংলায়। বাংলায় ক্ষমতায় আসবেন যিনি জনগনের পাশে থাকেন, জনগণের কাজ করেন মমতা ব্যানার্জি। সেই সঙ্গে তিনি শুভেন্দু অধিকারীকে কটাক্ষ করে বলেন, ঝাড়গ্রাম , পশ্চিম মেদিনীপুর ও পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় ৩৫  টি বিধানসভা আসন রয়েছে। সেই  বিধানসভা গুলিতে বিজেপি জিতবে বলে শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন। এর মধ্যে ৫ টা বিধানসভা আসন জয়লাভ করে শুভেন্দু অধিকারী দেখাক বলে শুভেন্দু কে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করেন। সেই সঙ্গে অজিত মাইতি বলেন, “যাঁর মাথার চুল থেকে নখ পর্যন্ত দুর্নীতিতে ভরা। যিনি কোটি টাকার দুর্নীতি করেছেন, তাঁর মুখে চোর শব্দ মানায়না। উনি ডাকাতের থেকেও আরো বেশি। উনি নাকি মার্জিন বাড়ানোর জন্য বিজেপিতে যোগদান করেছেন। উনি মার্জিন বাড়ানোর জন্য নয়, উনি বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় বিজেপির জামানত বাজেয়াপ্ত হবে”। তিনি আরও বলেন, “ওনার চরিত্র মানুষ ভালভাবেই বুঝে নিয়েছেন। উনি যে ভাষায় তৃণমূল কংগ্রেসকে আক্রমণ করছেন বাংলার মানুষ ওই বেইমান, কাপুরুষ শুভেন্দু অধিকারীকে তার যোগ্য জবাব দেওয়ার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন”। 

পাশাপাশি এদিন সভা থেকে তিনি জোর গলায় বলেন, “ক্ষমতা থাকলে উনি গড়বেতায় তৃণমূল প্রার্থীকে হারিয়ে দেখান। কত ধানে কত চাল হয় তখনই বুঝে যাবেন”। সেই সঙ্গে সর্বস্তরের মানুষকে এদিন অজিত মাইতি বলেন, “মমতা ব্যানার্জি আপনাদের পাশে রয়েছেন। আপনারা মমতার পাশে থাকুন। উন্নয়নের কথা আপনাদের ভাবতে হবেনা। উন্নয়নের ডালি তিনি আপনাদের বাড়িতে পৌঁছে দেবেন তিনি”। এদিনের এই বিশাল সমাবেশ থেকে আওয়াজ ওঠে ‘গদ্দার শুভেন্দু হটাও, বাংলা বাঁচাও, সাম্প্রদায়িক বিজেপি হটাও দেশ বাঁচাও।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *