Breaking News

নন্দীগ্রামের মঞ্চে উঠে শুভেন্দুকে বড় সার্টিফিকেট দিলেন দিলীপ ঘোষ

নন্দীগ্রামের মঞ্চে উঠে শুভেন্দুকে বড় সার্টিফিকেট দিলেন দিলীপ ঘোষ

নন্দীগ্রামের মঞ্চে উঠে শুভেন্দুকে বড় সার্টিফিকেট দিলেন দিলীপ ঘোষ

নিজস্ব প্রতিবেদন, গত ১৯ শে ডিসেম্বর মেদিনীপুর কলেজ মাঠে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের হাত ধরে শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগদান করার পর থেকেই রাজনৈতিক চর্চায় এখন মূল কর্ণধার হয়ে দাঁড়িয়েছে শুভেন্দু অধিকারী। অন্যদিকে শুভেন্দু অধিকারী যেসব জায়গায় সভা করছেন সেখানে তৃণমূল নেতৃত্ব থেকে শুরু করে কর্মী-সমর্থকরা ধীরে ধীরে বিজেপিতে যোগদান করছেন শুভেন্দুর হাত ধরে। যা নিয়ে অস্বস্তির মধ্যে পড়ে গিয়েছে শাসক দল। যদিও শাসক দলের পক্ষ থেকে বারবার জানানো হচ্ছে এতে দলের কোন ক্ষতি হচ্ছে না। শুক্রবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রামে জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের সংসদ দিলীপ ঘোষের কাছ থেকে বড় সার্টিফিকেট পেলেন শুভেন্দু অধিকারী।

এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন শুভেন্দু একজন জননেতা। এক বছর পর নন্দীগ্রামে পা রেখেই শুভেন্দু অধিকারীকে বড় সার্টিফিকেট দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপের এই মন্তব্যের পরেই নতুন করে জল্পনার পারদ চড়তে শুরু করেছে। তাহলে কি শুভেন্দুকে মুখ করেই বিজেপি বাংলায় ভোটের ময়দানে ঝাপাচ্ছে গেরুয়া শিবির। তাহলে কি বিজেপি বাংলার রাশ শুভেন্দুর হাতে তুলে দিতে চাইছে? জল্পনার পারদ চড়তে শুরু করেছে রাজনৈতিক মহলে। শুভেন্দু অধিকারীর হাইভোল্ডেজ সভা ঘিরে উত্তেজনার পারদ ছিল চরমে। এক বছর পর নন্দীগ্রামে শুভেন্দুর দৌলতেই পা রাখতে পেরেছেন দিলীপ ঘোষ, তাই হয়তো নন্দীগ্রামে পা রেখেই শুভেন্দুকে বড় সার্টিফিকেট দিলেন দিলীপ। শুভেন্দু একজন জননেতা, তাঁর নিজস্ব জনসমর্থন রয়েছে প্রকাশ্যেই শুভেন্দুর প্রশংসা দিলীপের। যদিও পদ ছাড়াই বিজেপিতে কর্মী হিসেবে কাজ করতে চান বলে জানিয়েছিলেন শুভেন্দু। তার পরে একের পর এক সভা করে নিজের শক্তি প্রদর্শন করেছেন। পদ না থাকলেও যে তিনি নিজেই জনসমর্থন ধরে রাখতে পারেন তা প্রমাণ করে দিয়েছেন, তাতে আজ সিলমোহর দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি।

এদিন মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী সহ বিজেপি রাজ্য সভাপতি, কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বর্গীয়, মুকুল রায় সহ এক ঝাঁক বিজেপি নেতৃত্ব। এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা দিলীপ ঘোষ-এর মুখ থেকে বর্তমান রাজ্য সরকারের একাধিক দুর্নীতি ও রাজ্য প্রশাসনের উপর আঙ্গুল তুলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। পাশাপাশি আম্ফান নিয়েও খোঁচা দেন তিনি। এদিন তার বক্তব্যের মাঝে শোনা যায় রাজ্যে ও কেন্দ্রে একই সরকার আনতে হবে তাহলে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় ভাবে উন্নয়ন হবে, অন্যদিকে শুভেন্দুর গলায় একি সুর শোনা যায়।

তবে সভা চলা কালীন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয় মঞ্চ জুড়ে, তবে পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি আবার স্বাভাবিক হয়। অন্যদিকে যেসব তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা বিজেপিতে যোগদান করতে এসেছিলেন সেই নিয়েও বিক্ষোভ দেখাতে থাকে বিজেপি যুব মোর্চা। তাদের বক্তব্য, যেসব তৃণমূল কর্মী এতদিন বিজেপি কার্যকর্তাদের উপর অত্যাচার করে আসছে এবং এলাকায় বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করছে। সেই সব তৃণমূল কর্মী যদি বিজেপিতে যোগদান করে তাহলে মানুষ সেটা ভালো চোখে দেখবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *