Breaking News

রামনগরে বিজেপির যোগদান মেলাতে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক

রামনগরে বিজেপির যোগদান মেলাতে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক

রামনগরে বিজেপির যোগদান মেলাতে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক

নিজস্ব প্রতিবেদন, বিজেপির শক্তি বৃদ্ধি নিয়ে একদিকে চিন্তিত রাজ্যের শাসকদল। ইতিমধ্যেই পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রামে ১ ও ২ নং ব্লকের ১৭ টি পঞ্চায়েতের নেতৃত্বে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিল বেশকিছু মানুষ। শনিবার ফের রামনগর বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির যোগদান মেলায় বিজেপির অনুগামী হয়ে হাজার হাজার মানুষ অন্যান্য দল ছেড়ে বিজোপিতে যোগ দেয়।

যোগদান মেলায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায়, কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক তথা রাজ্য পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়, সাংসদ ও রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক লকেট চ্যাটার্জী, এম এল এ ও রাজ্য বিজেপি সম্পাদক সব্যসাচী দত্ত কাঁথি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী সহ একাধিক নেতৃত্ব। বহু মানুষের সমাগমে যোগদানের মাধ্যমে তৃণমূল নেতৃত্বের অধিকারী গড়ে বিজেপির শক্তি বৃদ্ধি। একদিকে শুভেন্দু অধিকারী দল বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় চাপে তৃণমূল, তার ওপর পূর্ব মেদিনীপুর জেলা জুড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার হিড়িক জোর কদমে চলছে সে কারনে এদিন কাঁথির রামনগরে বিজেপির একাধিক নেতৃত্বের উপস্থিতিতে কয়েক হাজার মানুষ বিজেপিতে যোগদান করে।

রামনগরে এসে কৈলাশ বিজয়বর্গীয় পশ্চিমবঙ্গের সরকারকে চালচোর সরকার বলে সম্বোধন করেন।পাশাপাশি তিনি বলেন, “আজকের রামনগরে বিজেপির সভায় উপস্থিত মানুষের আওয়াজ নবান্নের ইট নড়িয়ে দেবে। রামনগরের মানুষের আওয়াজ পশ্চিমবঙ্গের চালচোরদের সরকারের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেবে। আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী বাংলায় এসে গরীবদের চাল দিচ্ছে, ঝড় এলে নজর রাখেন, মমতা ব্যানার্জিকে সঙ্গে নিয়ে হেলিকপ্টার করে ঘুরে দেখে এক হাজার কোটি টাকা দিয়ে গেলেন, কিন্তু সেই টাকা কোথায় গেল কেউ জানে না।পশ্চিমবঙ্গ সরকার সকলের টাকা খেয়ে নিচ্ছে বলে কটাক্ষ করেন তিনি। এমন সরকার বাংলায় থাকার প্রয়োজন নেই।”

পশ্চিমবঙ্গের মানুষ ঠিক করে নিয়েছে বিজেপির সরকার গড়তে হবে, বিজেপি সোনার বাংলা গড়বে, এখানে মা বোনেদের সম্মান রক্ষা করবে। মমতা ব্যানার্জি ইনভেস্টার মিটের নামে কোটি কোটি টাকা আত্মসাত করেছেন, একটা উদ্যোগ কাজে লাগায়নি, বেকার যুবকদের সংখ্যা বাংলায় বেড়েছে। ভারতীয় জনতা পার্টির সরকার এলে কারখানা হবে, বেকার যুবকদের রোজগার বাড়বে, আত্মনির্ভর বাংলা তৈরি হবে বিজেপির সরকার এলে, এমনই আশ্বাস দেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

পাশাপাশি লকেট চ্যাটার্জী বলেন, সিঙ্গুর নন্দীগ্রাম মমতা ব্যানার্জিকে নব্বানের চেয়ারে বসিয়েছিল সেই সিঙ্গুর নন্দীগ্রাম বর্তমান মুখ্যমন্ত্রীকে সিংহাসন থেকে নামিয়ে বিজেপির সরকার গড়ে দেবে। বাংলায় চপ ও বোমা শিল্প ছাড়া আর কিছুই হচ্ছে না। হস্তশিল্প হিসেবে বোমা বাঁধা হস্তশিল্প চলছে। কাঁথিতে পান চাষি, মাছ চাষি, ধান চাষিরা রয়েছে, সেখানে তাঁরা যদি সাবলম্বি হতে পারে, সেই ধরনের আইন তৈরি করেছেন মোদীজি, কিন্তু মমতা ব্যানার্জী বাংলাকে পাকিস্তান বানিয়ে তুলেছে বলে কটাক্ষ করলেন সাংসদ লকেট চ্যাটার্জী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *