Breaking News

শালবনিতে প্রতীকি শিলান্যাস করতে গিয়ে দল বদল নিয়ে বিরোধীদের কটাক্ষ রাজ্য ডিওয়াইএফআইয়ের সভানেত্রী মীনাক্ষীর

শালবনিতে প্রতীকি শিলান্যাস করতে গিয়ে দল বদল নিয়ে বিরোধীদের কটাক্ষ রাজ্য ডিওয়াইএফআইয়ের সভানেত্রী মীনাক্ষীর

শালবনিতে প্রতীকি শিলান্যাস করতে গিয়ে দল বদল নিয়ে বিরোধীদের কটাক্ষ রাজ্য ডিওয়াইএফআইয়ের সভানেত্রী মীনাক্ষীর

নিজস্ব প্রতিবেদন, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনিতে যেসব প্রস্তাবিত জমিতে শিল্প হওয়ার কথা ছিল সেই সব জায়গায় রবিবার প্রতীকি শিলানাস করে আগামী দিনে শিল্পায়নের ডাক দিল DYFI সংগঠন। রবিবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার জিন্দাল কারখানার সামনে দাসপুর, খড়গপুর, এবং গোয়ালতোড় থেকে ডিওয়াইএফআই সংগঠনের সদস্যরা বাইক মিছিল করে জমায়েত হয়ে পুনরায় শিলান্যাস করলেন রাজ্য ডিওয়াইএফআইয়ের সভানেত্রী মীনাক্ষী মুখার্জি। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিপিএম নেতা তাপস সিনহা, অভয় মুখার্জি, সুমিত অধিকারী সহ একাধিক ডিওয়াইএফআই সংগঠনের সদস্য বৃন্দ। এদিন জিন্দালদের কারখানার গেটের সামনে শিলানাস করে সুন্দরা ফুটবল ময়দানে সমাবেশে করে ওই সংগঠন। উক্ত সভায় বক্তব্য রাখেন মীনাক্ষী মুখার্জি, সেখান থেকেই একজোটে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি কে নিশানা করেন ডিওয়াইএফআই সংগঠনের রাজ্য সভানেত্রী মীনাক্ষী মুখার্জি।

পাশাপাশি বক্তব্য রাখার সময় মুকুল রায়, শুভেন্দু অধিকারী,ভারতী ঘোষ, অর্জুন সিং -কে কটাক্ষ করেন মীনাক্ষী মুখার্জি। এদিন তিনি বলেন, “এক সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবর্তনের ডাক দিয়েছিলেন। এরা কোন নাম খুঁজে পাচ্ছেন না তাই নাম দিয়েছে পরিবর্তনের পরিবর্তন রথ। আমরা জানি, রথ মানে নতুন গাড়ি, কিন্তু তা নয় গাড়ি থাকবে পুরাতন, স্টাইলিং থাকবে পুরাতন, সিট থাকবে পুরাতন শুধু লোক থাকবে একই অর্থাৎ শুভেন্দু অধিকারি এবং অন্যান্য তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদানকারীরা”। একজোটে এভাবেই কটাক্ষ করলেন মীনাক্ষী মুখার্জি। পাশাপাশি ভারতী ঘোষের সম্বন্ধে তিনি বলেন, “একসময় যিনি বলতেন জঙ্গলমহলের মায়ের হাত রয়েছে আমার মাথার উপর। এখন তিনি বলছেন আমি বুঝতে পারিনি ওটা আমার ডাইনি মা ছিল, সে তো আমার রক্ত চুষে খাচ্ছিল”। পাশাপাশি তিনি আরোও বলেন, “একসময় তৃণমূলের গাড়ি চালানোর জন্য পেট্রোল যোগান দিতেন ভারতী ঘোষ। এখন বিজেপির রথ চালনা করার জন্য পেট্রোল জোগান দিচ্ছেন”। অন্যদিকে আগামী ১১ ই ফেব্রুয়ারি নবান্ন অভিযানের ডাক দিয়েছে বাম সংগঠনগুলি। সেই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন মীনাক্ষী মুখার্জি। কার্যত এক কথায় বলা যেতে পারে, বিধানসভার ভোট যত এগিয়ে আসছে রাজ্যের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলির পাশাপাশি বাম সংগঠনের নেতৃত্বরাও মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *